পাহাড়ের মানুষের পাশে উন্নয়ন কাজ চলমান বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর

নিজস্ব প্রতিনিধি:
আর্থ সামাজিক উন্নয়নের পাশাপাশি সকল সম্প্রদায়ের মধ্যে শান্তি ও সম্প্রীতির বন্ধন কে অারো দৃঢ় করতে অত্যান্ত দক্ষতার সাথে দায়িত্ব পালন করে আসছে ডেয়ারিং টাইগার্স ২৩ ই বেঙ্গল রেজিমেন্ট কাপ্তাই জোন। ২৩ বেঙ্গলের পক্ষ থেকে সকল ধরনের সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে।

বুধবার সকাল ১১ ঘটিকায় রাজস্থলী সাব জোন কর্তৃক আয়োজিত হেডম্যান কার্বারী সম্মলনে রাজস্থলী সাব জোন অধিনায়ক মেজর মোহাম্মদ মন্জুর প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্যে এসব কথা বলেন। বাংলাদেশ সেনাবাহিনী তথা ২৩ বেঙ্গল পার্বত্য রাজস্থলীতে দায়িত্বপ্রাপ্ত হওয়ার পর থেকে গরীব ও অসহায়দের পাশে থেকে আর্থ সামাজিক উন্নয়নের পাশাপাশি সকল সম্প্রদায়ের মধ্যে শান্তি ও সম্প্রীতির বন্ধন কে দৃঢ় করতে অত্যান্ত দক্ষতার সাথে দায়িত্ব পালন করে আসছে।

তিনি জানান কাপ্তাই জোন যে কোন দুর্যোগপূর্ণ পরিস্থিতি আর্ত – মানবতার সেবায় বে সমারিক প্রশাসন কে তাৎক্ষনিক সহায়তায় সার্বক্ষনিক পাশে ছিল এবং পাশে থাকবে। তিনি হেডম্যান কারবারীদের উদ্যেশে বলেন পাহাড়ে শান্তি চাই কেউ যদি অশান্তি সৃষ্টি করে থাকলে তাদের কে অাইন শৃংক্ষলা বাহিনীকে অবগত করে জানাবেন, পাহাড়ে সন্ত্রাসী চাঁদাবাজীদের প্রতিরোধ যে কোন পরিস্থিতি মোকাবেলা করার জন্য সেনাবাহিনীর সাথে যোগাযোগ রাখবেন। আগামী ২১ সালে স্বাধীনতার সুর্বন্য জয়ন্তী হবে।

এ পাহাড়ের উন্নয়নের জন্য সরকার আপ্রান চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে, রাজস্থলী হতে থেগামুখ পর্যন্ত যে সিমান্ত রোড নির্মান করা হচ্ছে তাতে এই এলাকার উন্নয়নের চেহেরা পাল্টেযাবে এবং এলাকার মানুষের কর্মসংস্থান বৃদ্ধি হবে। পার্বত্য অঞ্চলের শান্তি ফিরে আনতে হলে উন্নয়নের উপর ভরসা রাখতে হবে। আপনাদের সহযোগিতা একান্ত কাম্য আমরা দেশ প্রেমিক হয়ে দেশের সুনাম অক্ষুন্ন রাখবো। স্বাধীনতা অর্জন করেছি, স্বাধীনতা রক্ষা করে আমরা আজ বাংলাদেশে বাস করছি।

বাংলাদেশ সেনাবাহিনী সারা বিশ্বে একটি উন্নত হিসেবে পরিচিত লাভ করে পৃথিবীর মানুষ সেনাবাহিনী সম্পর্কে জানে আমরা অান্তর্জাতিক ভাবে পরীক্ষিত। আর্থ সামাজিক উন্নয়নের পাশাপাশি শিক্ষা, চিকিৎসা সহ সকল সম্প্রদায়ের মাঝে সাম্প্রাদায়িক সম্প্রীতি রক্ষায় সেনাবাহিনীর এমন উদ্যােগ ভবিষ্যতেও অব্যাহত থাকবে।

আপনারা অস্ত্র ধারীদের প্রশ্রয় দিবেন না যদি তারা প্রকাশ্যে ঘোরা ফেরা করে তাহলে সাথে সাথে পুলিশ বা সেনাবাহিনীকে খবর দেবেন। পাহাড়ের জনগনের জানমাল রক্ষা ও যে কোন দুর্যোগ মোকাবেলায় বাংলাদেশ সেনাবাহিনী নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

সে ধারবাহিকতা বজায় রাখতে সেনাবাহিনীর প্রতিটি সদস্য সদা তৎপর হয়েছে এবং ভবিষ্যতেও থাকবে। এ সময় অন্যানের মধ্যে বক্তব্য রাখেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার শেখ ছাদেক, থানা অফিসার ইনচার্জ মফজল অাহামদ খান,সিনিয়র ওয়ারেন্ড অফিসার মুখলেসুর রহমান, ওয়ারেন্ড অফিসার লিটন, চিংখ্যং মৌজার হেডম্যান চথোয়ানু মারমা, কার্বারী উজ্বল কান্তি তনচংগ্যা প্রমুখ।সম্মলনে বিভিন্ন মৌজার হেডম্যান কারবারী মেম্বার চেয়ারম্যানসহ প্রিন্ট ইলেকট্রনিকস সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।