দোহাজারী-কক্সবাজার রেললাইন দেশের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে: রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন

মাঈন উদ্দীন, চন্দনাইশ প্রতিনিধি:
রেলমন্ত্রী মোঃ নুরুল ইসলাম সুজন এম.পি বলেছেন, “প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অগ্রাধিকার প্রকল্প চট্টগ্রামের দোহাজারী থেকে কক্সবাজার পর্যন্ত নতুন রেললাইন নির্মিত হলে দেশের অর্থনীতিতে এটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। এ অঞ্চলের মানুষের আর্থ-সামাজিক অবস্থার উন্নয়ন ঘটবে। এ রেললাইনটি শুধু এ অঞ্চলের মানুষের চাহিদা নয়, সারা বাংলাদেশের মানুষের চাহিদা। ফাস্ট ট্রাকভূক্ত এই প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে পর্যটন নগরী কক্সবাজারে যাতায়াতের জন্য খুবই সহজ হবে এবং দেশি-বিদেশী অধিক সংখ্যক পর্যটক কক্সবাজারে আসবে। ১০০ কিলোমিটার এ লাইনে ২/১টি স্থান ছাড়া পুরো লাইনে ভূমি অধিগ্রহণের জটিলতা শেষ হয়েছে। ব্রীজ ও কালভার্টের কাজ প্রায় শেষের দিকে। মাটির কাজও প্রায় ৬০ ভাগ শেষ হয়েছে। যেভাবে কাজ চলছে তাতে আগামী মার্চ মাসের মধ্যে মাটির কাজ সম্পুর্ণ শেষ করা সম্ভব হবে। ২০২২ সালের জুনের মধ্যেই কাজ সম্পন্ন হবে।”

শনিবার (১২ সেপ্টেম্বর) বিকেলে চন্দনাইশের দোহাজারীতে নির্মিতব্য নতুন রেলওয়ে স্টেশন এলাকা ও শঙ্খনদীর উপর নির্মিত রেলসেতু পরিদর্শনকালে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন তিনি।

পরিদর্শনের সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন প্রকল্প পরিচালক মফিজুর রহমান, প্রজেক্ট ম্যানেজার বিমল চন্দ্র সাহা, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (দক্ষিণ) আফরুজুল হক টুটুল, সহকারি পুলিশ সুপার (আনোয়ারা সার্কেল) মফিজ উদ্দীন, তমা কনট্রাকশনের সত্বাধিকারী আতাউর রহমান ভুইয়া মানিক, চন্দনাইশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নাসির উদ্দিন সরকার, প্রজেক্টের সহকারী ম্যানেজার নাজমুল হোসাইন, দোহাজারী পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ আবদুল হালিম, দোহাজারী পৌরসভা আ’লীগ সভাপতি আবদুল শুক্কুর, উপজেলা কৃষকলীগ সাধারণ সম্পাদক নবাব আলী, হাশিমপুর ইউপি চেয়ারম্যান আলমগীরুল ইসলাম চৌধুরী, শাহ আলম মেম্বার, জামাল উদ্দিন মেম্বার, সাইফুল ইসলাম সুমন প্রমুখ।

এদিকে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার রেললাইন নির্মাণে নিয়োজিত ঠিকাদার তমা কনস্ট্রাকশান পানি নিষ্কাষনের ব্যবস্থা না রেখে অপরিকল্পিতভাবে ভরাট করে ফেলায় দোহাজারীতে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি, দোহাজারী রেলওয়ে স্টেশন সড়কে ভারী গাড়ি চলাচল করায় সড়কের বেহাল দশায় জনদুর্ভোগ এবং খানবাড়ি জামে মসজিদ কবরস্থানের সীমানা দেয়াল ভেঙ্গে পড়ার ব্যাপারে রেলমন্ত্রী বরাবরে একটি আবেদনপত্র প্রদান করা হয়।