শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর - ২০২১
শনিবার, সেপ্টেম্বর ১৮, ২০২১
আরও

    র্বোড ক্লোজিং এর আড়ালে গড়ে উঠছে নতুন ক্যাসিনো ধ্বংসের মুখে দেশের যুব সমাজ

    বিশেষ প্রতিবেদকঃ
    প্রশাসনের দৃষ্টির অগোচরে ডেসটিনি, যুবক, ইউনিপে, এহসান এস সোসাইটি ইত্যাদি প্রতারণামূলক এমএলএম কোম্পানীগুলোর মতো অধুনা ক্যাসিনোর আদলে “র্বোড ক্লোজিং” নামে গড়ে উঠেছে নতুন প্রতারনা মুলক কোম্পানী। এটি মূলত এমএলএম এর আধুনিক অনলাইন র্ভাসন বলা চলে। এটি একটি ওয়েব সাইট ভিত্তিক কোম্পানী। ওয়েব সাইটটি পর্যবেক্ষণ করে দেখা যায়, তাদের ওয়েব সাইটটি নাল স্ক্রিপ্ট দিয়ে করা। কোন রিয়েল কোম্পানী কখনো নাল পিএইচপি স্ক্রিপ্ট দিয়ে নিজেদের সাইট বিল্ড করেনা। আরো দেখা যায়, এটি মূলত একটি বাংলাদেশী সাইট। তারা আমেরিকার যে ঠিকানা ব্যবহার করেছে সেখানে তাদের কোন অফিস নেই। সুতরাং বলা যায় এটি একটি হাইপ সাইট।

    উক্ত সাইটে ডুকার সাথে সাথে দেখা যায়, তারা মেসেঞ্জার ও ওয়াটসঅ্যাপ এর মাধম্যে যোগাযোগ করেতে বলে যা সন্দেহের বড় কারণ।
    এছাড়াও তাদের স্বত্বাধিকারী বা পরিচালকদের কোন প্রোফাইলও পাওয়া যায় না। এমনকি বিদেশে বা দেশে এ ব্যবসার অনুমোদনের বৈধ কোন কাগজপত্র নেই। অথচ প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে এক শ্রেণীর প্রতারক নিয়ে যাচ্ছে হাজার কোটি টাকা।

    অনুসন্ধানে দেখা যায়, র্বোড ক্লোজিং মূলত একটি ওয়েবসাইট ভিত্তিক মাল্টিলেভেল মার্কেটিং (এমএলএম) কোম্পানী। এখানে ১২ ডলার বা ৯৬০ টাকা দিয়ে একটি আইডি এক্টিভ করতে হয়। তবে এই আইডিটি এক্টিভ রাখতে আরো ৩টি আইডি খুলতে হয়। ৩টি লাইনের প্রত্যেকটিতে ১০০টি করে আইডি একটিভ করে মোট ৩০০টি আইডি একটিভ হলে দেয়া হয় মাসিক ১৬০০০/ টাকা। এভাবে একজন কাস্টোমার যখন ৪০০০০ হাজার আইডি সক্রিয় রাখেন, তখন তিনি বোনাস হিসেবে পান ২০০০০০০/-(বিশ লক্ষ টাকা প্রায়) অন্য দিকে এর মাধ্যমে কোম্পানী পান= {(৪০০০০x ৯৬০)-২০০০০০০}=৩৬৪00000/-(তিন কোটি চৌষট্রি লক্ষ) টাকা । যদিও কোম্পানী তার ব্যবসায়িক পলিসি হিসেবে নিজেকে একটি এ্যাড র্ফাম হিসেবে দাবি করে। তাদের দাবি অনুযায়ি তারা স্যামসাং কোম্পানীর সাথে চুক্তিবদ্ধ যে, তারা স্যামসাং কোম্পানীর এ্যাডগুলো তাদের গ্রাহকদের দেখানোর মাধ্যমে তাদের ব্যবসায়িক র্কাযক্রম পরিচালনা করে। অথচ তারা এরকম কোন ডুকুমেন্ট দেখাতে পারেনি। তাছাড়া এই হাজার কোটি টাকার বিনিময়ে স্যামস্যাং কোম্পনী কোন এ্যাড ফার্মের সাথে চুক্তি করবেন বিয়টি একেবারেই অবিশ্বাস্য।

    অনুসন্ধানে আরো দেখা যায়, কোম্পানীটি কিছু লোককে ২৪০০০০/-(চব্বিশ লক্ষ) টাকা, দামি মোবাইল সেট, স্যুট ইত্যাদি দিয়ে তাদের মাঠপর্যায়ে দালাল হিসেবে নিয়োগ দেয়। এসব দালালরা তৃণমূলপযায়ে তরুণ, যুবক ও মহিলাদের বিভিন্ন লোভনীয় অফার দিয়ে কোম্পানীতে জয়েন্ট করায়। প্রাথমিকভাবে ১টি আইডির কথা বললেও পরবর্তীতে একাধিক আইডি করার লোভনীয় অফরারের কথা বলে তাদের র্স্ববস্ব খুইয়ে নিচ্ছে। দেখা যা্চ্ছে জুয়ার লোভে পড়ে মানুষ একদিকে যেমন তাদের নগদ টাকা অন্য দিকে অনেকেই এর লোভে ছেড়ে দিচ্ছে তার পুরনো চাকরি কিংবা কর্র্ম। এতে করে দেশের অর্র্থনীতির বৃহত্তর অংশ কতিপয় অসাধু লোকের মাধ্যমে চলে যাচ্ছে বাহিরে। অন্যদিকে তরুণ ও যুবকদের ঠেলে দেয়া হচ্ছে ভবিষ্যৎ অন্ধকারের দিকে।

    সবচেয়ে আশ্চায্যের বিষয় হচ্ছে, কোম্পানিটি দালাল হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে পথভ্রষ্ট কিছু হুজুরদের। তাদের প্রতি মানুষের সরল বিশ্বাসকে কাজে লাগিয়ে তারা প্রতারনার জাল বুনছে।
    এব্যাপারে বিজ্ঞ আলেম ও মুফতিয়ে কেরামগণের সাথে কথা বললে তারা এটাকে সর্ম্পূণ হারাম বলে মতামত দেন। এর পাশাপাশি তারা জানান এমএলএম সম্পর্কে হারাম ফতোয়া আগ থেকেই দেওয়া আছে। বর্তমান র্বোড ক্লোজিং সম্পর্কেও খুব সহসা স্পস্ট লিখিত ফতোয়া আসবে।
    দেশের সচেতন মানুষের সাথে এব্যাপারে জানতে চাইলে তারা এর চরম বিরুধীতা করেন। সেই সাথে এসব ভুয়া প্রতারকদের ব্যাপারে অতিস্বত্তর প্রশাসনের জোর নরজদারী ও হস্তক্ষেপ কামনা করেন। তারা আরও বলেন প্রশাসন এ ব্যাপারে নীরব থাকলে দেশে আবারো গজিয়ে উঠবে নব্য কোন এমএলএম বা ক্যাসিনো।

    9,705FansLike
    36FollowersFollow