রামুর কচ্ছপিয়ার দৌছড়িতে বোনের জমি জবরদখলে মরিয়া আপন দুই ভাই!

নিজস্ব,প্রতিবেদকঃ
কক্সবাজারের রামু উপজেলার কচ্ছপিয়া ইউনিয়নের কচ্ছপিয়া মৌজার বিএস ৬৭২,৬৭৩,৬৭৪,৬৭৫ খতিয়ানের ৫.৮৮.৬৮ শতক একই ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডের দৌছড়ী দঃকুল এলাকার মরহুম হাজী নুর আহমদের মেয়ে তাহেরা বেগম এর জমি দোছড়ী গ্রামের মরহুম হাজী নুর আহমদের পুত্র বাদীনির আপন ভাই ফরিদ আহমদ,ছালেহ আহমদ সহ আরো ১০/১২ জন কর্তৃক জবরদখল করার লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে।

লিখিত অভিযোগে গর্জনিয়া পুলিশ ফাঁড়ী অভিযোগ মতে জানা যায়,বাদীনি তাহেরা বেগম পৈত্রিক সূত্রে স্বত্ব ও দখলামল করা জমি ওয়ারিশ মুলে প্রাপ্ত হন।গত ৯/১১/২০২১ ইং সকাল আনুমানিক বিকাল ৬ ঘটিকার সময় বাদী তার রেকর্ডীয় জমিতে গেলে বিবাদী দা নিয়ে হত্যা চেস্টা চালায়।অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করে ধাওয়া করেন।

পুনরায় বাদী তার পরিবারের সদস্য ও আত্নীয় স্বজনদের নিয়ে বিরোধীয় জমিতে গেলে বিবাদী ফরিদ আহমদ গং বাদীনি ও তার স্বজনদের মারধর,খুন,জখম করবে,ঘর-বাড়ি পুড়িয়ে দেবে,বাদীনি ও স্বজনদের রক্তে জমি ভাসিয়ে দেবে,বাদীনি কে মিথ্যা মামলা সহ নানাবিধ বানোয়াট মামলায় জড়িয়ে দেবে সহ ঘর বাড়ি ছাড়া করবেন মর্মে হুমকি প্রদান করেন।বিবাদী ফরিদ আহমদ গং বিরোধীয় বাদীনি তাহেরা বেগম এর ওয়ারিশি জমি জবরদখলের চেস্টা করলে তাতে বাঁধা প্রদান করলে উভয় পক্ষের মধ্যে মারাত্নক দাঙ্গা হাঙ্গামা, খুন,খারাবী সহ এলাকার আইনশৃঙ্খলা অবনতি ঘটার আশঙ্কা করে বাদী তাহেরা বেগমের পরিবার পরিজনের জানমালের নিরাপত্তা চেয়ে গর্জনিয়া পুলিশ ফাঁড়ীতে লিখিত অভিযোগ করেছেন।

গর্জনিয়া পুলিশ ফাঁড়ির আইসি ইন্সপেক্টর ফরহাদ আলী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে প্রতিবেদক কে জানান, বিষয়টি গূরুত্ব দিয়ে তদন্ত করা হচ্ছে যেহেতু এলাকায় আইনশৃঙ্খলা অবনতি ঘটার আশঙ্কা রয়েছে সেহেতু আইনশৃঙ্খলা যাতে অবনতি না ঘটে সেদিকে বিশেষ নজর রাখবে পুলিশ।

এ ব্যাপারে অসহায় তাহেরা বেগমে তার পৈতৃক ওয়ারিশি জমি ভুমিদস্যু ফরিদ আহমদ গংদের রাহুগ্রাস থেকে উদ্ধারে কক্সবসজার সদর-রামু আসনের সাংসদ আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমল, কক্সবাজার জেলা প্রশাসক, কক্সবাজার জেলা পুলিশ সুপার,রামু উপজেলা নির্বাহী অফিসার,রামু থানার অফিসার ইনচার্জ, গর্জনিয়া পুলিশ ফাঁড়ির আইসি সহ সংশ্লিষ্ট সকলের আন্তরিক সহযোগিতা কামনা করেছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here