ফের অশান্ত সীমান্ত: কুটনৈতিকভাবে সমস্যা সমাধানের দাবী সচেতন মহলের!

সাজন বড়ুয়া সাজু, কক্সবাজার:
আবারও অশান্ত হয়ে পড়েছে ঘুমধুৃমের তুমব্রু সীমান্ত,মায়ানমার জান্তা বাহিনী ও আরাকান বাহিনীর মধ্যে চলমান সংঘর্ষের ফল যেন ভোগ করতে হচ্ছে সীমান্তে বসবাসকারী বাংলাদেশী বাসিন্দাদের, তাদের মধ্যে চলমান সংঘর্ষে ছুড়া মর্টারশেল একেরপর এক বৃষ্টির মত আছড়ে পড়ছে বাংলাদেশে।

এর আগে কয়েকটি বোমা তুমব্রু সীমান্তে পড়ার পর দুই দুই বার মায়ানমার হাইকমিশনকে সতর্ক করেছিল বাংলাদেশ।এরপরে মাঝখানে বেশ কয়েকদিন একটু শান্ত থাকলেও কাল থেকে ফের অশান্ত হয়ে পড়েছে তুমব্রু সীমান্ত।

গতকাল দুপুরে সীমান্তে ফুঁতে রাখা মাইন বিস্ফোরণে অংঙ্যথাইন তঞ্চঙ্গ্যা নামে এক আদিবাসী যুবকের পা উড়ে যায়,তাৎক্ষণিক তাকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে আসাহলে কর্তব্যরত চিকিৎসক আশংখাজনক অবস্থায় তাকে চট্রগ্রামে রেফার করে।এরপর রাত ৮টার দিকে মায়ানমার সেনাবাহিনীর পরপর ৩ টি মর্টারশেল এসে পড়ে বাংলাদেশ সীমান্তে বসবাস করা কোনারপাড়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পে।মর্টারশেলের আঘাতে মোঃ ইকবাল নামে একজন নিহতসহ বেশ কয়েকজন গুরুতর আহত হয়।

এদিকে কাল গতকাল রাতভর থেমে থেমে গুলিবর্ষণসহ অস্থির এমন পরিস্থিতি বিবেচনায় ঘুমধুৃমের এসএসসি পরিক্ষা হল কুতুপালং উচ্চ বিদ্যালয়ে হস্তান্তর করা হয়েছে।
মায়ানমারের এমন কর্মকান্ডে বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে মায়ানমারকে মোখিক প্রতিবাদ জানিয়েছে বলে জানান বিজিবির পরিচালক (অপারেশন) লে.কর্নেল ফয়জুর রহমান।

সচেতন মহল বলছে মায়ানমারের ইস্যুতে বাংলাদেশের আরও কঠোর হওয়া দরকার এবং জাতিসংঘের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের উচিত কঠিনভাবে জবাব দেয়া।এছাড়া বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করতে সীমান্তে অবস্থান নেয়া রোহিঙ্গারা কোনো কারনে বাংলাদেশে ঢুকে পড়লে দেশের পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ হবে।

তাউ সাধারণ মানুষ মনে করেন যুদ্ধ হলে সবার আগে কক্সবাজারের পর্যটন শিল্পে প্রভাব ফেলবে,তাই কূটনৈতিকভাবে মোকাবেলা করলে সমাধান মিলবে এবং অশান্তির অবসানসহ নানান সমস্যা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here