টি-টেন লিগে ৫ বাংলাদেশী!

তাহমিদ লিয়াম,
আগামী বছরের ২৮ জানুয়ারী থেকে শুরু হতে যাওয়া আবুধাবি টি-টেন লিগের ৪র্থ আসরের প্লেয়ার্স ড্রাফটস গতকাল ২৩ ডিসেম্বর সম্পন্ন। এবং এই ড্রাফটস থেকে ৫ জন বাংলাদেশী ক্রিকেটার দলও পেয়ে গেছেন।

সবার আগে ড্রাফটস থেকে মোসাদ্দেক হোসাইনকে দলে ভিড়িয়েছে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন মারাঠা অ্যারাবিয়ান্স। এর কিছুক্ষণ পর একই দল নেয় টাইগার স্পিডস্টার তাসকিন আহমেদকে৷

বাংলাদেশের একমাত্র ফ্র‍্যাঞ্চাইজি বাংলা টাইগার্স দলে নেয় মারকুটে ব্যাটসম্যান আফিফ হোসাইনকে। এরপর একেবারে শেষের দিকে তারা দলে টানে অলরাউন্ডার শেখ মেহেদি হাসানকেও।

তবে ড্রাফটসে সবচেয়ে বড় আশ্চর্যের ব্যাপার হলো নাসির হোসাইনের দল পাওয়াটা। দীর্ঘদিন ধরেই জাতীয় দলের বাইরে তাছাড়া গত বঙ্গবন্ধু বিপিএলেও ছিলেন ফ্লপ৷ ফিটনেসের কারণে নাম লেখাতে পারেননি সদ্য সমাপ্ত বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপের ড্রাফটসেও৷ আর সেই নাসির হোসাইনকেই কি-না দলে নেয় পুনে ডেভিলস!

উল্লেখ্য গত আসরেও কিন্তু শেখ মেহেদি, ইয়াসির আলী, আবু হায়দার রনি, আনামুল হক, আরাফাত সানি, জুনায়েদ সিদ্দিকী ও ফরহাদ রেজাকে দলে নিয়েছিল বাংলা টাইগার্স কিন্তু জাতীয় দলের ভারত সফর এবং ঘরোয়া লিগ চলায় তখন একমাত্র ফরহাদ রেজাই খেলার অনুমতি পেয়েছিলেন। এবং একটি ম্যাচে খেলেও ছিলেন রেজা। এর আগের টি-টেন লিগে তামিম ইকবাল খেলেছিলেন ভারতীয় ফ্র‍্যাঞ্চাইজি বেঙ্গল টাইগার্সের হয়ে৷ অর্থাৎ এখন পর্যন্ত কেবল ২ বাংলাদেশীরই টি-টেন লিগে খেলার অভিজ্ঞতা আছে।

টি-টেন লিগের পরবর্তী আসর হওয়ার কথা জানুয়ারীতে। আর ঐ সময়েই বাংলাদেশে দ্বিপাক্ষিক সিরিজের জন্য আসার কথা রয়েছে উইন্ডিজের আর তাই ঐ সফরে থাকা ৩ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের জন্য বিবেচনায় থাকা পেসার তাসকিন আহমেদ, আফিফ হোসাইন ও শেখ মেহেদিকে বিসিবি শেষমেশ খেলার অনুমতি দিবে কি-না, সেটাও একটা প্রশ্ন৷ জাতীয় দলের বিবেচনার বাইরে থাকা নাসির হোসাইন এবং অফফর্মে থাকা মোসাদ্দেক হোসাইনকে হয়তো-বা দেখা যেতে পারে কেননা ঐ সময়ে কোন ঘরোয়া ক্রিকেটও নেই৷

আফিফ এবং মেহেদী যদি টি-টেন লিগে খেলার ছাড়পত্র পেয়ে যান তাহলে বাংলা টাইগার্সে তারা সতীর্থ হিসেবে পাচ্ছেন আফগান মুজিব উর রহমান ও কাঈস আহমাদ, পাকিস্তানি মোহাম্মদ ইরফান, শ্রীলঙ্কান ইসুরু উদানা, ক্যারিবিয়ান স্পাইসম্যান আন্দ্রে ফ্লেচার ও জনসন চার্লসদের এবং দক্ষিণ আফ্রিকান ডেভিড উইজিকে৷

এছাড়া মারাঠা অ্যারাবিয়ান্সে তাসকিন ও মোসাদ্দেক ছাড়াও থাকছেন পাকিস্তানি শোয়েব মালিক, মোহাম্মদ হাফিজ এবং ইংলিশ ব্যাটসম্যান লরি ইভান্সের মতো ক্রিকেটাররা।

এছাড়া শ্রীলঙ্কান থিসারা পেরেরা, সদ্য আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে বিদায় নেওয়া পেসার মোহাম্মদ আমির, দক্ষিণ আফ্রিকান হার্ডাস ভিলিয়ন, ইংলিশ ব্যাটসম্যান স্যাম বিলিংস, চামারা কাপুগেদারা, ক্যারিবিয়ান কেনার লুইসদের নিয়ে শক্তিশালী দলই গড়েছে নাসির হোসাইনকে নেওয়া পুনে ডেভিলস।

শেষমেশ খেলার ছাড়পত্র পেলে আফিফ-মেহেদী বনাম তাসকিন-মোসাদ্দেকের একটি লড়াইও দেখা যেতে পারে কেননা একই গ্রুপে পড়েছে বাংলা টাইগার্স এবং মারাঠা অ্যারাবিয়ান্স। ‘এ’ গ্রুপে বাকি দুই দল হলো নর্দার্ন ওয়ারিয়র্স ও দিল্লি বুলস। অন্যদিকে বি গ্রুপে আছে ডেকান গ্ল্যাডিয়েটর্স, টিম আবুধাবি, কালান্দার্স এবং পুনে ডেভিলস।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here