চন্দনাইশে মোবাইল কোটে ৬ হাজার পাঁচশত টাকা জরিমানা

মাঈন উদ্দীন,
দ্বিতীয় দফায় লকডাউনের প্রথম দিনে চন্দনাইশে মোবাইল কোটে ১৬ জন চালক ও পথচারীকে ৬ হাজার ৪থশ ৫০ টাকা জরিমানা করেন।

আজ ১৪ এপ্রিল দুপুরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে সরকারী বিধি নিষেধ অমান্য করে চট্টগ্রাম- কক্সবাজার মহাসড়কে যানবাহন ব্যবহার করায় সিএনজি টেক্সিচালক নুরুল কাদেরকে ৫থশ, জাবেদ উদ্দীনকে ২থশ, আল আব্বাসকে ২থশ, হাসান আরাফাতকে ২থশ, সিরাজুল ইসলামকে ২থশ, মফিজ উদ্দীনকে ১থশ, মাইক্রোচালক আওলাদ হোসেনকে ১হাজার, সিরাজুল ইসলামকে ১ হাজার, মোটর বাইক চালক আবুল কালামকে ১ হাজার, মো.কায়সারকে ১থশ, মো. আলমকে ৫থশ, ব্যাটারী চালিত রিক্সাচালক মো. ইসহাককে ১থশ, রোরহান উদ্দীনকে ১থশ, বেলাল উদ্দীনকে ৫০, মাস্ক ব্যবহার না করায় পথচারী জয়নাল আবেদীনকে ১থশ, আল ফয়সালকে ২থশ টাকাসহ ৬ হাজার ৪থশ ৫০ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। এ সময় প্রশাসনের পক্ষ থেকে মাস্ক বিতরণ করা হয়। এদিকে চন্দনাইশ থানা পুলিশ মোবাইল কোর্ট চলাকালীন সহযোগিতা করার পাশাপাশি গাছবাড়ীয়া পুরাতন কলেজ গেইট, নতুন কলেজ গেইট, দোহাজারী সদর, চন্দনাইশ সদর এলাকায় পৃথক পৃথক টিম অবস্থান করার পাশাপাশি একটি মোবাইল টিম চন্দনাইশে বিভিন্ন এলাকায় লকডাউন বাস্তবায়নে কাজ করছে বলে জানিয়েছেন থানা অফিসার ইনচার্জ নাসির উদ্দীন সরকার।

এদিকে লকডাউনের ১ম দিনে চন্দনাইশে যথাযথভাবে পালিত হয়নি। সকালে সড়কে সাধারণ মানুষ চলাচল কম করলেও বেলা গড়ার সাথে সাথে সড়কে সাধারণ মানুষ বেড়িয়ে আসার পাশাপাশি গণ-পরিবহন তথা সিএনজি টেক্সি, অটোরিক্সা, বালি ও ইট বহনকারী ট্রাক অবাধে চলাচল করছে। তবে দুপুরের দিকে প্রশাসনের নজরদারী ও মোবাইল কোর্ট পরিচালনার কারণে সড়ক কিছুটা নিয়ন্ত্রণে আসে। কিন্তু সরকারী নির্দেশনা অনুযায়ী চন্দনাইশে লকডাউন পালিত হচ্ছে না বলে স্থানীয় সচেতন মহলের অভিযোগ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here