একটা ব্রিজের অভাবে ভোগান্তিতে রামুর কচ্ছপিয়ায় ২০০ পরিবার!

এম.মোবারক হোসাইন, স্টাফ রিপোর্টার:
কক্সবাজারের রামুর কচ্ছপিয়া ইউনিয়নে ৮ও ৯নং ওয়ার্ডের প্রায় ২০০ পরিবারকে স্বাধীনতার ৫০ বছরেও ভোগান্তিতে জীবন যাপন করতে হচ্ছে মাত্র ছোট একটা ব্রিজের অভাবে। এই নদী পার হয়েই অসংখ্য কচিকাঁচা শিক্ষার্থীদেরকে স্কুল-মাদ্রাসায় আসা যাওয়া করতে হয়।

এমনও হয়েছে অনেক গরীব বাবার সন্তান নদী পার হয়ে স্কুলে যাওয়ার সময় নদীতে পরে বই-খাতা ভিজে নষ্ট হয়ে যায়। যার ফলে, পড়া-লেখা ছেড়ে শিশু শ্রমে যুক্ত হয়েছে অনেকেই। এইভাবে শত শত ছেলে-মেয়ে অশিক্ষিত হয়ে বড় হতে হচ্ছে। যারা ভালো খারাপ কিছুই নির্ণয় করতে পারছেনা। জড়িয়ে পরছে মাদকের মত অসংখ্য অপরাধে।

এলাকাবাসীরা মাননীয় এমপি সাইমুম সরওয়ার কমল এর কাছে আবেদন জানিয়েছেন তাদেরকে যেন একটি সেতু দিয়ে ৫০ বছরের কষ্ট দূর করেন। তারা(এলাকাবাসী) আরো বলেন একমাত্র এমপি কমলেই আমাদের কষ্ট দূর করতে পারবে। কারণ তিনি রামু-কক্সবাজারের অভিভাবক। যিনি সাধারণ মানুষের মনের ভাষা বুঝতে পারেন এবং প্রতিটি দুর্যোগে সাধারণ মানুষের ধারে ধারে ছুড়ে যান। গরীব দুঃখী মানুষের পাশে দাড়াঁন। তাই আমাদের একমাত্র বর্শা মাননীয় এমপি সাইমুম সরওয়ার কমল মহোদয়ের প্রতি।

স্থানিয়রা জানান,গত কয়েক বছরে এলাকাবাসী স্বেচ্ছাশ্রমে বাঁশের সাঁকো বানিয়ে যাতায়াতের সুবিধা সৃষ্টি করেছিলেন। কিন্তু সম্প্রতি ভারী বর্ষণের ফলে স্রোতে সাঁকো ভাসিয়ে নিয়ে গেছে। নদী পারাপার হয়ে কচ্ছপিয়ার ৮নং ও ৯নং ওয়ার্ডের প্রায় ২হাজার মানুষ এই রাস্তা দিয়ে যাতায়াত করে। দীর্ঘদিনের এ কষ্ট থেকে মুক্তি পেতে গ্রামবাসী স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও সরকারের কাছে বহুবার সেতু নির্মাণের দাবি জানিয়ে আসছে। কিন্তু কেউ ছাড়া দেননি। তবে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রতি আমাদের আস্তা রয়েছে। উনি আমাদের এমপি সাইমুম সরওয়ার কমল মহোদয়ের মাধ্যমে একটি সেতু নির্মাণ করে দিবেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here