আজ বিশ্ব পঙ্গু দিবস

মাসুদা আকতার তিশা, বিশেষ প্রতিনিধিঃ

আজ ১৫ মার্চ,যে তারিখটি বিশ্ব পঙ্গু দিবস হিসেবে ঘোষিত।বিশ্বের বিভিন্ন দেশে দিবসটি পালন করা হচ্ছে। তবে বাংলাদেশেও দিবসটি আজ পালিত হলেও বাংলাদেশে সরকারি-বেসরকারি পর্যায়ে দিবসটি তেমন একটা গুরুত্ব সহকারে পালিত হয়না।

“পঙ্গুত্বের বড় কারণ সড়ক দুর্ঘটনা”
আমাদের দেশে প্রতিদিনই সড়ক দূর্ঘটনায় প্রায় বহু মানুষের মৃত্যু হচ্ছে।খুব জোর বেচেও গেলেও জীবনে নেমে আসে পঙ্গুত্বের অভিশাপ। তবে বিশেষজ্ঞদের মতে, সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণহানির চেয়ে পঙ্গুত্বের সংখ্যা দ্বিগুণের বেশি।

বাংলাদেশে পঙ্গুত্বের একটা বড় কারণ হলো “সড়ক দুর্ঘটনা”। খাত-সংশ্লিষ্টদের মতে, দেশে প্রতি বছর দুর্ঘটনায় আহত হয়ে অন্তত ১০ হাজার মানুষ পঙ্গুত্ব বরণ করে।

জাতীয় অর্থোপেডিক পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠানের তথ্যমতে, বিভিন্ন দুর্ঘটনায় আহত হয়ে বছরে প্রায় এক লাখ ৩০ হাজার রোগী এ প্রতিষ্ঠান থেকে চিকিৎসা নেন। এর মধ্যে প্রায় ৫০ হাজার রোগী জরুরি বিভাগ থেকে সেবা নেন। এসব রোগীর মধ্যে বছরে সাড়ে তিনশ’ থেকে চারশ’ জন পঙ্গুত্ব বরণ করেন।

দেশে নিরাপদ সড়ক ও চালক সচেতনতা নিয়ে সরকারি-বেসরকারি নানা উদ্যোগ ও কর্মসূচি চালু থাকলেও কমছেনা সড়ক দুর্ঘটনা।তার কারণ গাড়ির চালক রা এসব আইন নিয়ম কে না মেনেই তাদের ইচ্ছে মতো বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চালাই। ফলে প্রতিদিন সকল শ্রেণির মানুষ সড়ক দুর্ঘটনার সম্মুখীন হচ্ছে। এতে করে কেউ প্রাণ হারায়, কেউ পঙ্গুত্ব বরণ করে।

তথ্যসুত্রে জানা যায়, কয়েকদিন আগে আমাদের দেশের দু’জন বিখ্যাত যন্ত্রশিল্পী সড়ক দুর্ঘটনায় মারা যায়।উল্টো দিক থেকে বেপরোয়া গতিতে আসা গাড়ির ধাক্কায় তারা প্রাণ হারায়।এরকম প্রতিদিন হাজার হাজার সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ হারাচ্ছে অনেকে।কেউ হয়ে যাচ্ছে আজীবনের জন্য পঙ্গু।

তাদের এ পঙ্গুত্ব অবস্থার জন্য তারা নিজেরা দায়ী নয়। কিন্তু এক সময় গিয়ে তারা তাদের পরিবারের কাছে বোঝা হয়ে যায়

স্বজনরা তাদের প্রিয়জন হারালেও বা পঙ্গুত্ব হলেও তারা সরকারের কাছ থেকে তাদের ন্যায্য বিচার পাচ্ছে না।

সরকার এর বিরুদ্ধে কঠিন আইন প্রয়োগ করলে এবং তা বাস্তববায়ন হলে,হয়তো সড়ক দুর্ঘটনা কিছুটা কমিয়ে আনা সম্ভব।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here